আমার ভালোবাসা কুশিয়ারা সাহিত্য সংসদ ২ পর্ব সেলিম আহমদ মুসা


  প্রকাশিত হয়েছেঃ  06:38 AM, 05 January 2021

আমার ভালোবাসা…(২)
কুশিয়ারা সাহিত্য সংসদ
– সেলিম আহমেদ মুসা
সংক্ষিপ্ত আলোচনা-
গত দিনের পর
————————-
সিলেটের ঐতিহ্যবাহী সাহিত্য ও সামাজিক সংগঠন কুশিয়ারা সাহিত্য সংসদ।

সাহিত্য সমাজের দর্পণ। সাহিত্য দিয়ে সমাজ পরিবর্তন করা সম্ভব। সাহিত্য ছাড়া কোন সুশীল সমাজ চলতে পারে না। সমাজের ভিতরকার অন্ধকার দূর করতে হলে সাহিত্যমনা সমাজ কর্মী প্রয়োজন। আলোকিত সমাজ গড়তে হলে শিক্ষা ছাড়া সম্ভব না। এজন্যই প্রয়োজন একটা শিক্ষিত জাতি। সুশিক্ষিত সমাজ গঠনে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই।

সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে যে কুসংস্কার লুকায়িত আছে তা শিক্ষার আলো দিয়ে দূর করা সম্ভব। ইসলাম শিক্ষার পাশাপাশি অন্যান্য শিক্ষা ও আমাদের অর্জন করতে হবে। দেশে এবং বিদেশে যেহেতু আমাদের সরব উপস্থিত লক্ষণীয়। যেমন বাংলা ভাষা মায়ের ভাষা,তেমনিভাবে অন্য ভাষা গুলো অর্জন করা আমাদের প্রয়োজন।

সমাজের পিছিয়ে পড়া অসহায় গরীব ও এতিমদের জন্য আমাদের কিছু করা যা দেখে অন্যজন এগিয়ে আসে এবং দুহাত প্রসারিত করতে পারে। উদারমনা, সাহিত্যমনা, দানশীল কর্মীই সমাজের অহংকার। এ যেন সমাজের পুষ্পিত ফুলের ন্যায়, সুবাস ছড়ায় সর্বত্র। তাদের লুকায়িত প্রতিভা বিকশিত হলে সমাজ আলোকিত হয়ে উঠবে।
ইনশাআল্লাহ।

সমাজের লুকায়িত প্রতিভা গুলো আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই সারাবিশ্বে। যে আলোয় আলোকিত হবে পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র ব্যবস্থা। একটি নিরাপদ সমাজ গড়ে উঠবে, যেখানে থাকবে না হানাহানি, প্রতিহিংসার বারুদ। যে সমাজে থাকবে না অসহায় মানুষের নিপীড়ন, নির্যাতন আর আর্তনাদ। চারিদিকে গড়ে উঠুক সহমর্মিতা আর ভালোবাসায় বন্ধুত্বের বন্ধনে বন্ধন।

আমাদের সংগঠনের বেশির ভাগ সদস্য/সদস্যাগন ছাত্র -ছাত্রী, এছাড়াও বিভিন্ন পেশার সাথে জড়িত আছেন। তাদের একনিষ্ঠা মেহনত আর ভালোবাসায় আমরা পাড়ি দিয়ে এসেছি ২৪ টি বছর।

আমাদের প্রাপ্তি হয়তো চোখে পড়বে না। কিন্তু আমাদের আছে অগাধ আস্থা, বিশ্বাস ও ভালোবাসা এবং দৃঢ় প্রত্যয় মনোবল।

আমরা একটি আলোকিত সমাজ গড়তে ভুমিকা রাখতে চাই। আলোকিত মানুষ ঘরে ঘরে জন্ম নিবে,সেটা চাই।

যাদের আলোয় আলোকিত হবে প্রতিটি জনপদ। মনের ইচ্ছা শক্তি,সাহস আর ধৈর্যের সময়নিষ্ঠায় আমাদের সফলতা নিয়ে আসবে।
ইনশাল্লাহ।

আমাদের একঝাঁক নিবেদিত প্রাণ আছে। তাদের মেধা, শ্রম,সময় দিয়ে এগিয়ে চলছি আমরা আলোর পথ রেখায়, আমি আশাবাদী একদিন আলোকিত হয়ে উঠবে এই জনপদের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী।

প্রতিটি মানুষের নিজস্ব ভাবনা চেতনা আছে। মনের বাসনা স্বপ্ন আছে। অনেক ভালো ভালো প্রতিভা বিকশিত হতে পারছে না দারিদ্র্যের কষাঘাতে নতুবা প্রচারের অভাবে। তাদের পাশে দাঁড়ানো একটু সাহস আর উৎসাহ জোগানো। তাদের কে খোঁজে বের করে সামনে নিয়ে আসতে পারলেই সমাজ উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে, সফলতা আসবে। আমরা পারব এই মনোবল এবং সে চেষ্টা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। নিশ্চয় ই আমাদের সফলতা আসবে একদিন।
ইনশাআল্লাহ।
——– চলমান

লেখক- সম্পাদক
কুশিয়ারা ভিউ।

আপনার মতামত লিখুন :