আইপিএল শুরু ও শেষে পুরোপুরি বৈপরীত্য


  প্রকাশিত হয়েছেঃ  10:36 AM, 13 November 2020

শুরুর আগে ছিল অনেক সংশয়। করোনাভাইরাসের কারণে দফায় দফায় পিছিয়েছে উদ্বোধনী ম্যাচের তারিখ। স্বাভাবিক নির্ধারিত সূচিতে ছিল মার্চ মাসে শুরু হবে আইপিএলের ১৩তম আসর। কিন্তু বিশ্বব্যাপী মহামারির কারণে মার্চ তো নয়ই, পরের পাঁচ মাসেও আইপিএল আয়োজনের কোনো সুযোগ ছিল না ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সামনে।

অবশেষে নানান আলোচনা ও বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত নেয়া হয় আইপিএল হবে সেপ্টেম্বরে, তাও কি না ভারতে নয়। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পুরো আইপিএল সরিয়ে নেয়া হয় আরব আমিরাতে। যেখানে গত ১৯ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জমজমাট এ আসর। আর প্রায় দুই মাসের আয়োজনের পর্দা নামল মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) রাতে।

গত ১৯ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে মাঠে নেমেছিল গত আসরের চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও রানার্সআপ চেন্নাই সুপার কিংস। দীর্ঘ দুই মাসব্যাপী লড়াই শেষে ১০ নভেম্বরের ফাইনালেও জায়গা করে নেয় মুম্বাই, আইপিএলের এবারের আসরের শুরু ও শেষের মিল বলতে এই একটিই। এছাড়া অমিলই সবচেয়ে বেশি।

ফাইনালে মুম্বাইয়ের প্রতিপক্ষ ছিল দিল্লি ক্যাপিট্যালস। দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে হওয়া ফাইনালে আগে ব্যাট করে অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার ও উইকেটরক্ষক রিশাভ পান্তের ফিফটির পরেও ১৫৬ রানের বেশি করতে পারেনি দিল্লি। জবাবে মাত্র ৫ উইকেট হারিয়ে ৮ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় মুম্বাই।

অথচ আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে চেন্নাইয়ের কাছে পাত্তাই পায়নি মুম্বাই। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে হওয়া ম্যাচটিতে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৬২ রান করেছিল তারা। জবাবে মাত্র ৫ উইকেট হারিয়ে ৪ বল হাতে রেখেই ম্যাচ জিতে নেয় চেন্নাই, দেয় শিরোপা পুনরুদ্ধারের ঘোষণা।

কিন্তু টুর্নামেন্ট যতই এগিয়েছে, ততই যেন বদলেছে দৃশ্যপট। উদ্বোধনী ম্যাচে চ্যাম্পিয়ন মুম্বাইকে উড়িয়ে দেয়া চেন্নাই সুপার কিংস সবার আগে বাদ পড়েছে টুর্নামেন্ট থেকে। নিজেদের ১৪ ম্যাচে তারা জয়ের দেখা পেয়েছে মাত্র ৬টিতে। শেষদিকে টানা দুইটি ম্যাচ জেতায় পয়েন্টের ঘরটা দুই অঙ্ক ছুঁয়েছে চেন্নাইয়ের। নয়তো পড়তে হতো আরও বিব্রতকর অবস্থায়।

অন্যদিকে আসরের প্রথম ম্যাচে চেন্নাইয়ের কাছে ধরাশায়ী হওয়া মুম্বাই টুর্নামেন্ট শেষ করেছে সবার ওপরে থেকে, রেকর্ড পঞ্চম শিরোপা জেতার মাধ্যমে। চেন্নাইয়ের কাছে হার দিয়ে শুরুর পরেও প্রথম পর্বে ১৪ ম্যাচের মধ্যে ৯টিতেই জিতেছিল মুম্বাই। পরে প্লে-অফে এসে প্রথম কোয়ালিফায়ার এবং ফাইনাল জিতে হয়েছে চ্যাম্পিয়ন।

অর্থাৎ উদ্বোধনী ম্যাচের জয়ী দল টুর্নামেন্ট থেকে বাদ পড়েছে সবার আগে। আর হার দিয়ে যাত্রা শুরু করা দলটিই শেষপর্যন্ত জিতেছে শিরোপা। অবশ্য মুম্বাইয়ের পাঁচ শিরোপার সবগুলোতেই তারা আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরেছিল। তাই হার দিয়ে আসর শুরু করলেও চিন্তার ভাঁজ পড়ে না আইপিএল ইতিহাসের সফলতম দলটির ম্যানেজম্যান্টের কপালে।

আপনার মতামত লিখুন :