অনিদ্রা দূর করবে গরম পানি, জানুন উপায়

sonalibangla24.comsonalibangla24.com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  05:32 AM, 13 November 2020

বিভিন্ন কারণে অনেকেই অনিদ্রার সমস্যায় ভুগে থাকেন। রাতের পর রাত না ঘুমিয়ে কাটিয়ে দেন। এতে দেখা দেয় অবসাদ এবং শারীরিক নানা সমস্যা। অনিদ্রার সমস্যা দেখা দেয় বিভিন্ন কারণে।

ঘুম ঠিক মত না হলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে পারে। বাড়তে পারে রক্তে শর্করা, রক্তচাপ। এক্ষেত্রে সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যায়। সমস্যা দীর্ঘমেয়াদি হলে ক্লান্তি, অবসাদ, মনোযোগহীনতা, চিন্তা ও স্মৃতিশক্তির সমস্যা, খিটখিটে মেজাজ ইত্যাদি সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

এই সমস্যা দূর করবে গরম পানি। খেতে হবে না। শান্তিমতো ঘুম আসার জন্য ভালো দাওয়াই হলো লবণ গরম পানিতে গোসল করা। গোসলের ফলে আমাদের শরীরে, ত্বকে ঘামের সঙ্গে জমে থাকা ব্যাক্টেরিয়া পরিষ্কার হয়ে যায়। পানিতে লবণ মিশিয়ে গোসল করার যে কত উপকারিতা অনেকেই জানে না।

অনিদ্রা, অবসাদ বা ত্বকে জীবাণুর সংক্রমণ ঠেকাতে লবণ পানিতে গোসল করা একেবারে অব্যর্থ দাওয়াই। আমরা খাবারে লবণ খাই। লবণ আমাদের শরীরে অনেক ব্যাধির উপশমে সাহায্য করে। ঠিক সেই রকম গোসলের জলের বাথ সল্ট ব্যবহার করলেই হবে।

লবণ গরম পানিতে গোসলের আরো উপকারিতা রয়েছে। জেনে নিন সেগুলো-

> অনেকের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্যথা হয়ে থাকে। লবণ পানিতে গোসল করার ফলে আপনার শরীরের ব্যথাও কমতে পারে! অনেক ধরনের ব্যাধির হাত থেকে রেহাই পেতে পারেন।

> নিয়মিত লবণ পানিতে গোসল করতে পারলে শরীরে জীবাণুর সংক্রমণ, ত্বকের সমস্যা সহজেই দূরে রাখা সম্ভব।

> এতে শরীর থেকে টক্সিন দূর হয়। ফলে বাড়বে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও। লবণ পানিতে নিয়মিত গোসলের অভ্যাস শরীর থেকে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া আর টক্সিন সম্পূর্ণ দূর করে আপনাকে ঝরঝরে রাখতে সাহায্য করে।

> লবণ পানিতে গোসল করলে শরীরে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়। একই সঙ্গে ত্বকের আর্দ্রতাও বজায় থাকে।

> শরীরে রোমকূপের মধ্যে দিয়ে একাধিক প্রয়োজনীয় খনিজ পদার্থ যেমন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, সোডিয়াম ত্বকে প্রবেশ করে। ফলে ত্বক থাকে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল, দীপ্তিময়।

> ত্বকের বলিরেখা বা বয়সের ছাপ পড়ার গতি মন্থর হয়ে যায়।

> শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি মেটাতে সাহায্য করে। বাত বা আর্থারাইটিসের ব্যথা কমানোর ক্ষেত্রেও লবণ পানিতে গোসল অত্যন্ত কার্যকরী!

> শারীরিক ক্লান্তি, অবসাদ কেটে যায় সহজেই। ফলে রাতে ঘুমও ভালো হয়। শীতকাল ছাড়া শোবার আগে লবণ পানিতে গোসল করতে পারলে অনিদ্রার সমস্যাও অনেকটাই কেটে যাবে।

> লবণে থাকে ম্যাগনেশিয়াম, ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, পটাশিয়াম যা ত্বকের মধ্যে গিয়ে ত্বকের কোষগুলোকে নতুনভাবে গঠন করে সতেজ ও উজ্জ্বল ত্বকের উপহার দেবে আপনাকে।

> অস্টিও আর্থারাইটিস, নিদ্রাহীনতা, চুলকানি এই সমস্ত রোগের হাত থেকে নিরাময় পাওয়া যায় এই লবণ পানিতে গোসলের মাধ্যমে।

মনে রাখবেন
পানিতে লবণ দেয়ার সময় খেয়াল রাখতে হবে লবণের পরিমাণ যেন বেশি না হয়। লবণ আর পানি যেন পরিষ্কার থাকে। ঘুম আসার জন্য ঘুমের ওষুধ সেবন না করে লবণ পানিতে গোসল করার পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করলে শান্তিমতো ঘুম হবে।

আপনার মতামত লিখুন :